Home / News / ১৮ উপজেলায় স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপির

১৮ উপজেলায় স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপির

• প্রথম পর্যায়ে ৮৭টি উপজেলা পরিষদে নির্বাচন
• প্রথম ধাপের ভোট গ্রহণ হবে আগামী ১০ মার্চ
• ৮৭ উপজেলার ৩২ টিতে বর্তমান চেয়ারম্যান বিএনপির
• কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে প্রার্থী হয়েছেন অনেকে

প্রথম পর্যায়ে ৮৭টি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন প্রার্থীরা। এর মধ্যে কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে ১৮টি উপজেলার চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন বিএনপির তৃণমূলের নেতারা। গত নির্বাচনে বিএনপির সমর্থন নিয়ে বিজয়ী চেয়ারম্যান আছেন তিনজন। প্রায় অর্ধেক উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যানের দুটি পদে অংশ নিচ্ছেন স্থানীয় নেতা-কর্মীরা। একাদশ সংসদ নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান করার পর বর্তমান সরকার ও নির্বাচন কমিশনের অধীনে আর কোনো নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। যদিও কয়েক দিন ধরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলে আসছেন, বিএনপির অনেকেই উপজেলা নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হবেন বলে তাঁদের কাছে খবর আছে। তাঁর ইঙ্গিত সত্যি করে দল ও জোটের সিদ্ধান্ত না মেনে কিছু নেতা নির্বাচনে অংশ নেওয়ায় অস্বস্তিতে পড়েছে বিএনপি।

এ প্রসঙ্গে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান প্রথম আলোকে বলেন, দলের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে তাঁদের কাছে এ–সংক্রান্ত প্রতিবেদন আসার পর বিষয়টি নিয়ে দলীয় ফোরামে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

জানা গেছে, ৮৭টি উপজেলার মধ্যে সর্বশেষ নির্বাচনে বিএনপির সমর্থন নিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন ৩২ জন। তাঁদের মধ্যে একজন মারা গেছেন। একজন দল পরিবর্তন করে এবার আওয়ামী লীগের হয়ে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। আর একাদশ সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করেছিলেন ছয়জন।

১২ জেলার প্রথম আলোর প্রতিনিধিদের দেওয়া তথ্যমতে, সুনামগঞ্জের তাহিরপুর, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ, দোয়ারাবাজার ও বিশ্বম্ভরপুর, সিরাজগঞ্জের চৌহালী, নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ, নাটোর সদর, রাজশাহীর বাঘা, বাগমারা ও পুঠিয়া, হবিগঞ্জের বানিয়াচং, আজমিরীগঞ্জ, চুনারুঘাট ও মাধবপুর, নেত্রকোনার পূর্বধলা এবং পঞ্চগড় সদর, বোদা ও দেবীগঞ্জ উপজেলায় মনোনয়ন জমা দিয়েছেন বিএনপির স্থানীয় নেতারা।

সুনামগঞ্জের চারটি উপজেলায় বিএনপির সাতজন নেতা স্বতন্ত্র হিসেবে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। তাঁরা হলেন তাহিরপুর উপজেলায় বর্তমান চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান, জেলা বিএনপির সহসভাপতি আনিসুল হক, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলায় জেলা বিএনপির সহসভাপতি ফারুক আহমদ ও আনসার উদ্দিন। আনসার উদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, নেতা-কর্মীদের এক জায়গায় ধরে রাখতেই প্রার্থী হয়েছেন তিনি। এ ছাড়া দোয়ারাবাজার উপজেলায় নির্বাচন করছেন উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও জেলা বিএনপির বর্তমান সদস্য মো. শাহজাহান এবং উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ।

নীলফামারীতে কিশোরগঞ্জ উপজেলায় বিএনপির ওলামা দলের জেলা সভাপতি আ ন ম রুহুল ইসলাম, নাটোর জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলাম সারওয়ার, রাজশাহীর বাঘায় উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আবদুল্লাহ আল মামুন, বাগমারায় উপজেলা বিএনপির সভাপতি ডি এম জিয়াউর রহমান ও পুঠিয়ায় জেলা বিএনপির সাবেক সহসভাপতি মোখলেসুর রহমান নির্বাচন করছেন।

হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে উপজেলা বিএনপির সভাপতি মঞ্জুর উদ্দিন, আজমিরীগঞ্জে উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক খালেদুর রশিদ, চুনারুঘাটে উপজেলা উপজেলা বিএনপির সভাপতি সৈয়দ লিয়াকত হাসান, মাধবপুরে উপজেলা বিএনপির সভাপতি সৈয়দ মো. শাহজাহান এবং নেত্রকোনার পূর্বধলায় প্রার্থী হয়েছেন জেলা বিএনপির বর্তমান কমিটির সহসভাপতি সাইদুর রহমান। পঞ্চগড় সদরে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা বিএনপির সভাপতি আবু দাউদ প্রধান, বোদায় পৌর যুবদলের সাবেক আহ্বায়ক জাকির হোসেন, দেবীগঞ্জে বিএনপির জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি আবদুল গণি বসুনিয়া এবং দেবীগঞ্জ উপজেলায় বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোফাখ্খারুল আলম। বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত নেতা বকশীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আবদুর রউফ তালুকদার এবার স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন। দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে ২০১৭ সালে বিএনপির সব পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয় বর্তমান এ চেয়ারম্যানকে।

উপজেলা পরিষদে প্রথম ধাপের ভোট গ্রহণ করা হবে আগামী ১০ মার্চ। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ১৯ ফেব্রুয়ারি।

[প্রতিবেদন তৈরিতে সহায়তা করেছেন সিলেট, বগুড়া, রংপুর, জামালপুর, নেত্রকোনা, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ, সিরাজগঞ্জ, জয়পুরহাট, নাটোর, রাজশাহী ও কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি]

About admin

Check Also

“ঢাবাং ডট কম” এর যাত্রা শুরু

নিউজ ডেস্ক, সম্পাদনায়-আরজে সাইমুর:গতকাল ২৪শে অক্টোবর শনিবার রাজধানীর রামপুরা বনশ্রীতে একটি চাইনিজ রেস্টুরেন্ট-এ ঢাবাং লিমিটেড …

Leave a Reply